মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৫:৫৯ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
NEWSS24 অনলাইন সংবাদ পত্রে আপনাকে স্বাগতম । বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন  । ধন্যবাদ

দাপুটে জয়ে সেমিফাইনালের পথে অস্ট্রেলিয়া

ডেস্ক রিপোর্ট
আপডেটের সময় : শনিবার, ৬ নভেম্বর, ২০২১

Spread the love

 

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১৫৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২২ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটের দাপুটে জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। আর এ জয়ের মধ্য দিয়ে সেমিফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল অ্যারন ফিঞ্চরা।

শনিবারের (৬ নভেম্বর) আরেক খেলায় দক্ষিণ আফ্রিকা যদি ইংল্যান্ডকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে রানরেটে অজিদের পেছনে ফেলতে পারে, তবেই কেবল সেমিফাইনালে উঠতে পারবে তারা। কেননা তখন দুই দলের পয়েন্ট হবে সমান। এখন পর্যন্ত রানরেটে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়াই।

অস্ট্রেলিয়া ওপেনার ওয়ার্নারের দুর্দান্ত ব্যাটে ভর করে বড় জয় পেয়েছে অজিরা। ওয়ার্নার ৯টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৫৬ বলে ৮৯ রান করে অপরাজিত ছিলেন। এছাড়া মিচেল মার্শ ৩২ বলে ৫৩ রান করেছিলেন।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ার বোলাররাও ক্যারিবীয়দের অল্পতেই আটকে ফেলে নিজেদের কাজটা সেরে রেখেছিলেন। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রান করে পোলার্ড-গেইলরা। 

আসর থেকে আগেই ছিটকে গিয়েছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে দলটির অধিনায়ক কাইরন পোলার্ডের লক্ষ্য ছিল শেষটা জয়ে রাঙানোর। সেটা আর হলো না। সুপার টুয়েলভে পাঁচ ম্যাচে উইন্ডিজদের জয় মাত্র একটি। তাও বাংলাদেশের বিপক্ষে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ম্যাচে আবুধাবিতে টস হেরে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে প্রথম থেকেই ব্যর্থতাই সঙ্গী হয় ক্যারিবীয়দের। ইনিংসের ৪ ওভার শেষেই ৪০ রান যোগ করতেই হারিয়ে ফেলে তিন তিনটি উইকেট। এরপর দল কিছুটা ঘুরে দাঁড়ালেও নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় তারা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ওপেন করতে নেমেছিলেন ক্রিস গেইল ও এভিন লুইস। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে বোলিং শুরু করেছিলেন মিচেল স্টার্ক। প্রথম দুই ওভার টিকে থাকতে পারলেও তৃতীয় ওভারে বল করতে আসা প্যাট কামিন্সের প্রথম বলেই ছক্কা মারেন গেইল। তবে দ্বিতীয় বলেই বোল্ড হন ‘দ্য ইউনিভার্স বস’। দুটি ছক্কার সাহায্যে ৯ বলে ১৫ রান করে সাজঘরে ফেরেন গেইল।

তৃতীয় ওভারে গেইলকে হারানোর ধাক্কা সামলে ওঠার আগেই চতুর্থ ওভারের প্রথম বলেই জস হ্যাজলউড ফেরান নিকোলাস পুরানকে। ১টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৪ বলে ৪ রান করে মার্শের হাতে ধরা পড়েন পুরান। একই ওভারে হ্যাজলউডের দ্বিতীয় শিকার হন রোস্টন চেজ। ২ বল খেলে খাতা খুলতে পারেননি তিনি। দলীয় ৩৫ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে ক্যারিবীয়রা।

ইনিংসের দশম ওভারে জাম্পার বলে স্টিভ স্মিথের হাতে ধরা পড়েন এভিন লুইস। ৫টি বাউন্ডারির সাহায্যে ২৬ বলে ২৯ রান করে আউট হন লুইস। এরপর ত্রয়োদশ ওভারে হ্যাজেলউডের বলে ওয়েডের সহজ ক্যাচে সাজঘরে ফেরেন আগের ম্যাচে দারুণ খেলা শিমরন হেটমায়ার। ২টি বাউন্ডারির সাহায্যে ২৮ বলে ২৭ রান করেন তিনি। এরপর ফিরে গেছেন ডোয়াইন ব্রাভো। আজই শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন তিনি।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এলেই রাজা হয়ে যায় ক্যারিবিয়ানরা। সারা বিশ্বে ক্ষুদ্র ফরম্যাটে তাদের কদর সবচেয়ে বেশি। বর্তমান চ্যাম্পিয়নও তারা । কিন্তু ২০২১ বিশ্বকাপে এসে তারা যেন হারিয়ে গেছে সেই তকমা।


আপনার মতামত লিখুন :    
এ জাতীয় আরো সংবাদ